ক্যাপিটালিজম, কনজিউমারিজম ও পুরুষত্ব

 

আধুনিক ক্যাপিটালিজম ও কনজিউমারিস্ট কালচারের প্রথম ভিক্টিম হইল পুরুষত্ব। পুরুষত্বের সাথে যুক্ত যেসব জিনিস ভায়োলেন্স, সাহস, ম্যানলিনেস, স্ট্রেংথ এইগুলা প্রতিস্থাপিত হইতেছে চাতুরী, পা চাটা, পিছন থেকে আঘাত ইত্যাদি অপৌরষিক বিষয় দ্বারা।

ক্যাপিটালিস্ট সিস্টেম ট্র্যাডিশনলাম ম্যানলিনেস চায় না। ক্যাপিটালিস্ট কালচার, বিজনেস, মার্কেট এগুলির মূল অস্ত্র ধোঁকা। ছলনাময়ী বানায় তারা, এই বৈশিষ্ট্য অপৌরষের।

যারা পুরুষ হিসেবে জন্ম নেয় এরা জীবন যাপন, শিক্ষা প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠার ভিতর দিয়া যাইতে যাইতে অপুরুষ হইতে থাকে। এমতাবস্থায় তাদের মধ্যে থাকা পুরুষত্ব সাপ্রেস অবস্থায় থাকতে থাকতে, কখনো কখনো বিকৃত উপায়ে প্রকাশ পায়। এইজন্য আমরা দেখি যে কেউ একজন অস্ত্র হাতে নিয়া গুলি করে মানুষ মারে। ওয়েস্ট থেকে জীবনের দিশা হারানো ইয়াং পোলাপান ভিন্ন জীবনের খোঁজে আইএসে গিয়া ভীড়ে। এইরকম, চক পলানিউক এবং ডেভিড ফিঞ্চারের মিলিত উপস্থাপন ফাইট ক্লাবে আমরা দেখি ক্যাপিটালিস্ট সমাজে পুরুষত্ব হারাইতে হারাইতে বিপর্যস্ত এডওয়ার্ড নর্টনের অন্য ভায়োলেন্ট স্বত্তা জেগে উঠে, টাইলার ডারডেন।

This entry was posted in সমাজ. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


*