কান্ডারী বলো এভাবে

“কান্ডারী বলো ডুবিছে মানুষ সন্তান মোরা মার” লাইনকে মানবিক ভেবে লোকেরা মানবিক কজে তা শেয়ার মারেন। কিন্তু লাইনটি জাতীয়তাবাদী ও সেলফিশ। মোর মার সন্তান ছাড়াও অন্য মাদের সন্তান আছে। আর মানুষ ছাড়াও অন্য প্রানীর জীবন আছে। ফলে মানবিক লাইনটা হবে, “কান্ডারী বলো ডুবিছে জীবন সন্তান এক মার।”

কান্ডারী বলতে নজরুল ধরিত্রী মা বুঝিয়েছেন কি?

নজরুল কী বুঝাইছেন, তা না বুঝেও বলা যায়, নজরুলের বুঝানিতে অর্থ নাই। অর্থ আছে তার টেক্সটে এবং কী কনটেক্সটে এই টেক্সট ব্যবহার হচ্ছে এর উপর।

আর ধরিত্রী মা নয়। ধরিত্রী বা দুনিয়া হচ্ছে জমি, ভূমি। মা হচ্ছেন একজন মনুষ্য, মহিলা জাতীর অন্তর্ভূক্ত। যিনি পুরুষজাতির সাথে যৌথভাবে সন্তান উৎপাদনে অংশ নেন। ধরিত্রী এমন নতুন সন্তান উৎপাদনের কাজে নিয়োজিত নন। তিনি মাটি, খনিজ, পানি, এবং জড় বস্তুবিশেষ।

নজরুল এখানে “বাঙালীই” বুঝাইছেন। একই কবিতায় আছে ‘বাঙালীর খুনে লাল হলো যেথা ক্লাইভের খঞ্জর’।

ঐ পরাধীন ব্রিটিশ অধীনে এই কবিতা ঐভাবে হয়ত ঠিক ছিল। জাতীয়তাবাদের উত্থানের কাল যেহেতু। কিন্তু এখন তা ঠিক নয়, কারন এখন বাংলা স্বাধীন, ও দেশের ভেতরে নানা জাতির বাস। আর বৃহত্তর নৈতিক বিবেচনায়, খালি মানুষ নয়, পশু প্রাণী মা’দের সন্তানদের জন্যও আমাদের মায়া (কম্প্যাশন) থাকতে হবে।

This entry was posted in সাহিত্য. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


*