আরণ্যক – পাঠ

আরণ্যক – পাঠ-১

“যেখানে যে ফুল নেই, সেখানে সেই ফুল, গাছ, লতা নিয়ে পুঁতব, এই আমার শখ। সারাজীবন ঐ করেছি। এখন আমি ও-কাজে ঘুণ হয়ে গেছি।”

কথাটি বলেছে যুগলপ্রসাদ। বিভূতিভূষণের আরণ্যক উপন্যাসের এক চরিত্র। এখানে “ঘুণ” হয়ে যাওয়া শব্দটি খেয়াল করেন। ঘুণ মানে সাধারণত ঘুণপোকা, যার আরেক অর্থ সুদক্ষ, পরিপক্ক, অতি নিপুণ। ঘুণ পোকা এমনভাবে নিরলস কাঠ খাইতে থাকে যে তারা অতি নিপুণ হইয়া উঠে। ধারণা করি এই থেকে ঘুণ অর্থ হইছে সুদক্ষ। আরেকটা শব্দ ঘূণাক্ষরে যার অর্থ ঘুণদষ্ট বা ঘুনে খাওয়া কাঠের উপরে অক্ষরের মত চিহ্ন। এর আরেক অর্থ হইছে সামান্য ইঙ্গিত। যেমন, ঘূনাক্ষরেও টের পাইলাম না আপনে মানুষ।

This entry was posted in সাহিত্য. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


*